সিরিয়া থেকে যে কারণে এস-৩০০ ব্যবস্থা সরিয়ে নিল রাশিয়া

সিরিয়া থেকে একটি এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরিয়ে নিয়েছে রাশিয়া।  এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একটি ব্যাটারি ক্রিমিয়া সংলগ্ন একটি রুশ বন্দরে পাঠিয়েছে মস্কো।

ইসরাইলের একটি স্যাটেলাইট ইমেজিং কোম্পানির বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স।

ইমেজস্যাট ইন্টারন্যাশনাল (আইএসআই) গত এপ্রিলে সিরিয়ার মাসিয়াফে এস-৩০০ অ্যান্টি এয়ারক্রাফ্ট ব্যাটারির উপস্থিতি এবং ২৫ আগস্ট টারতুস বন্দরে হার্ডওয়্যার পাঠানোর পর খালি জায়গাটির ছবি তুলেছে।

পৃথক ছবিতে ১২ এবং ১৭ আগস্টের মধ্যে সিরিয়ার টারতুস বন্দরে ব্যাটারির উপাদানগুলো দেখা গেছে। ২০ আগস্টের মধ্যে সেগুলো রাশিয়া পৌঁছে যায়।

আইএসআই বলছে, টারতুস থেকে একটি রুশ জাহাজে ব্যাটারির উপাদানগুলো স্থানান্তর করা হয়। পরে জাহাজটি রাশিয়ার নভোরোসিয়েস্ক বন্দরের উদ্দেশে যাত্রা করে।

তুরস্কের দারদানেলেস প্রণালি হয়ে জাহাজটি বর্তমানে নভোরোসিস্কে রয়েছে। তবে রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউক্রেনের সঙ্গে চলমান যুদ্ধে নিজ দেশের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদারের উদ্দেশ্যেই সিরিয়া থেকে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার ব্যাটারি সরিয়ে নিয়েছে মস্কো।

সিরিয়ায় মোতায়ন করা রাশিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, ইহুদিবাদী ইসরাইল সম্প্রতি সিরিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে যে ক্ষেপণাস্ত্র ও গাইডেড বোমা হামলা চালিয়েছে তার প্রায় অর্ধেক ভূপাতিত করতে সক্ষম হয়েছে দেশটির সশস্ত্র বাহিনী।

ইহুদিবাদী ইসরাইলের চারটি জঙ্গিবিমান গত বৃহস্পতিবার রাতে সিরিয়ার মাইসাফ শহরের একটি গবেষণা কেন্দ্রে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়।

রুশ সেনাদের পক্ষ থেকে শুক্রবার জানানো হয়, ইসরাইলের চারটি বিমান থেকে মোট চারটি ক্রুজ এবং ১৬টি গাইডেড বোমা ওই কেন্দ্রের ওপর ফেলা হয়।

রুশ নির্মিত বিমান বিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করে সিরিয়ার সেনারা দুটি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র এবং সাতটি বোমা ধ্বংস করতে সক্ষম হয়।

Share this post

PinIt
submit to reddit

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top