মাওলানা ভাসানীর ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বিএনপি নেতৃবৃন্দের শ্রদ্ধাঞ্জলি!

বাংলাদেশের স্বাধীনতার অন্যতম স্বপ্নদ্রষ্টা আফ্রো-এশিয়ার নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষের নেতা জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে গতকাল একটি কমিটি ও কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল বিএনপি।

‘মওলানা ভাসানী মৃত্যুবার্ষিকী পালন জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালনের জন্য দুই দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছিল। কর্মসূচির মধ্যে – আজ সকাল ১০টায় মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর মাজার জিয়ারত, পুষ্পমাল্য অর্পণ ও দোয়া। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুবদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু সহ বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় এবং টাঙ্গাইল জেলা শাখার নবনির্বাচিত আহ্বায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ।
এ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সকালে ঢাকা থেকে টাঙ্গাইলে এসে উপস্থিত হন।

এছাড়াও জেলা বিএনপি’র নবনির্বাচিত আহ্বায়ক কমিটির নেতৃত্বে উপজেলার নেতৃত্বে মিছিল সহকারে মাওলানা ভাসানীর মাজারে উপস্থিত হলে লোকে লোকারণ্য রূপ ধারণ করে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ইকবাল মাহমুদ টুকু ও শামসুজ্জামান দুদুসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

মাওলানা ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী তে উপস্থিত যুবদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক টাঙ্গাইলের সন্তান সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেন, মজলুম জননেতা মাওলানা ভাসানী শোষক শ্রেণী ও স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে আজন্ম সংগ্রামী এক নেতৃত্বের নাম। জন্মলগ্ন থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত শাসকের বিরুদ্ধে তাঁর এই লড়াই আমাদের প্রেরণার উৎস। মজলুম জননেতার আদর্শকে বুকে ধারণ করে এই বর্তমান শাসক শ্রেণীর বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

Share this post

PinIt
submit to reddit

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top