টাঙ্গাইল দেলদুয়ারে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের অভিযোগ।

টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (২০ আগস্ট) উপজেলার আটিয়া ইউনিয়নের কসবাআটিয়া গ্রামের আটিয়া বৃদ্ধাশ্রমে এ ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় স্বামীকে প্রধান আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রায় দেড় বছর আগে এলাসিন ইউনিয়নের আগ এলাসিন গ্রামের বানিছ মিয়ার স্ত্রী ৬ সন্তানের জননী ভানু বেগমকে (৫৫) ভাগিয়ে নিয়ে বিয়ে করে এলাসিন গ্রামের মৃত রজব আলীর ছেলে আফাজ উদ্দিন।

পরে স্বামী-স্ত্রী আটিয়া বৃদ্ধাশ্রমে এসে কেয়ার টেকারের কাজ নেয়। অভিযোগ রয়েছে পালিয়ে আসার সময় ভানু প্রবাসী দুই ছেলের পাঠানো মোটা অংঙ্কের টাকা ও মেয়েদের স্বর্ণালংকার সঙ্গে নিয়ে আসেন।

এ ঘটনার ১৫ দিন পরে ভানুর সাবেক স্বামী বানিছ মিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ভানুর বড় ছেলে শরিফ মিয়ার অভিযোগ রাতে আফাজ তার মাকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে খুন করে লাশ বৃদ্ধাশ্রমের পুকুরে ফেলে পালিয়ে গেছে।

বৃদ্ধাশ্রমের বাসিন্দারা শুক্রবার সকালে ভাসমান অবস্থায় লাশ দেখতে পেয়ে পাশ্ববর্তী প্রতিবেশীদের জানায়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। এ ব্যাপারে ভানুর বড় মেয়ের জামাতা আল আমিন বাদী হয়ে দেলদুয়ার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

দেলদুয়ার থানার (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন আমার টাঙ্গাইলকে জানান, ভাসমান অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Share this post

PinIt
submit to reddit

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top