প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি, প্যানেল মেয়র আ.লীগ থেকে বহিষ্কার

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে টাঙ্গাইল পৌরসভার প্যানেল মেয়র হাফিজুর রহমান স্বপনকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার (১৩ জুন) দুপুরে টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক ও সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ কথা জানানো হয়।

মেয়র হাফিজুর টাঙ্গাইল শহর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।

স্থানীয়রা জানান, গত ৫ জুন প্যানেল মেয়র হাফিজুর রহমান শহরের আকুরটাকুর পাড়ায় একটি জমি পরিমাপ নিয়ে জমির মালিক প্রয়াত আশরাফ চৌধুরীর জামাতা মফিজুর রহমানের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেন। কথা বলার একপর্যায়ে তিনি বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও মানি না।’ এ ছাড়াও তিনি নানা অশ্লীল বক্তব্য দেন। তার এ বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। অনেকেই তাকে বহিষ্কারের দাবি জানান।

এ নিয়ে শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহমেদ মজিদ ফেসবুকে ঘোষণা দেন- ‘হাফিজুর রহমান স্বপনকে দল থেকে বহিষ্কার করা না হলে তিনি পদত্যাগ করবেন।’

এরপর গত ৯ জুন প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কটূক্তির দায়ে হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল সদর থানায় পৌর কাউন্সিলর আতিকুর রহমান মোর্শেদ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। এছাড়া মুঠোফোনে হুমকি দেয়ার ঘটনায় শহরের আকুরটাকুর পাড়ার প্রয়াত আশরাফ চৌধুরীর জামাতা মফিজুর রহমান টাঙ্গাইল সদর থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, হাফিজুর রাজনৈতিক জীবনের প্রথমে ছাত্রদল ও পরে বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ২০১৪ সালের জুন মাসে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এরপরই তিনি প্রথমে পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও পরে সহ-সভাপতি পদ পান। তিনি টাঙ্গাইল পৌরসভার ১৬নং ওয়ার্ডে পরপর চারবার কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। সর্বশেষ গত ৩০ জানুয়ারির পৌর নির্বাচনে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। এরপর তিনি প্যানেল মেয়রের দায়িত্ব পান।

Share this post

PinIt
submit to reddit

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top