ভূঞাপুর হাসপাতালে বাড়ছে ডায়রিয়া-নিউমোনিয়া রোগীর চাপ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সোমবার (২৬ এপ্রিল) সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ২৯ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এতে হাসপাতালে রোগী ভর্তিতে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে।

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা জানান, প্রচণ্ড গরম ও ঋতু পরিবর্তনের পাশাপাশি রোজায় এর প্রভাব পড়েছে। এতে অনেকেই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন।

হাসপাতালে আসা শিশু মানহার মা মাহফুজা বলেন, রোববার রাত থেকে তার সন্তান ঠান্ডা ও জ্বরে ভুগছিল। এ অবস্থায় তাকে সকালে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসক দেখানোর পর তার নিউমোনিয়া ধরা পড়ে।

উপজেলা কুঠিবয়ড়া থেকে হাসপাতালে ডায়রিয়ার চিকিৎসা নিতে আসা মোশারফ হোসেন (৫০) বলেন, ‘রাত থেকেই পেটের ব্যথা অনুভব করি। এ সময় পাতলা পায়খানাও হয়েছে কয়েকবার। পরে সকালে গিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হই।’

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সাদিয়া ইমরোজ বলেন, ‘ঋতু পরিবর্তন, ব্যাপক তাপদাহ ও রোজার কারণে খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন এবং করোনার উপসর্গ হিসেবেও ডায়রিয়া হতে পারে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অনেক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এরআগে কম সময়ে এতো রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়নি।’

ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মহীউদ্দিন বলেন, ‘হঠাৎ করেই গেল ৫ ঘণ্টায় নারী, পুরুষ ও শিশু মিলিয়ে ২৯জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বেশি।’

Share this post

PinIt
submit to reddit

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top